খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

অপহৃত ৩ ব্যবসায়ীকে উদ্ধারে কর্মসূচি

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: গত ১৬ এপ্রিল খাগড়াছড়ির মহালছড়ির মাইসছড়ি থেকে নিখোঁজ হওয়া মাটিরাঙ্গার তিন কাঠ ব্যবসায়ীকে আগামী বুধবারের মধ্যে প্রশাসন উদ্ধারে ব্যর্থ হলে আগামী বৃহস্পতিবার খাগড়াছড়ি জেলায় সকাল সন্ধ্যা অবরোধ পালনের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে লাগাতর কর্মসূচী ঘোষনা করেছে পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদ।

অপহরণের পর গত ৮ দিন পেরিয়ে গেলেও অপহৃতদের কোন সন্দান দিতে পারেনি কেউ এমনকি প্রশাসনও তাদের উদ্ধারে ব্যর্থ। এমতাবস্থায় গত সোমবার খাগড়াছড়িতে সর্বাত্বক হরতাল পালন করেছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ, হরতালে পূর্নসমর্থন দিয়ে স্বতস্ফ’র্ত হরতাল পালন করেছে খাগড়াছড়িবাসী। এদিকে অপহৃতদের সুস্থ্ ও অক্ষত অবস্থায় উদ্ধারে আবারো প্রশাসনকে ৭২ ঘন্টা সময় বেধেঁ দিয়েছিলো পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ। বেধেঁ দেওয়া সময়ের মধ্যে অপহৃতদের উদ্ধারে প্রশাসন ব্যর্থ হলে আগামী ২৬ শে এপ্রিল রোজ বৃহস্পতিবার খাগড়াছড়িতে সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধের ঘোষনা দেয়া হয়েছে।  পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে প্র্রশাসনকে বেধে দেওয়া ৭২ ঘণ্টা সময় আজ অতিবাহিত হলেও অপহৃত তিন বাঙ্গালীকে এখন পর্যন্ত প্রশাসন উদ্ধার করতে ব্যার্থ হয়েছে। তাই পূর্বের ঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আগামী কাল ২৬/০৪/২০১৮ ইং রোজ বৃহাস্পতিবার খাগড়াছড়ি জেলায় অবরোধ কর্মসূচী পরিবর্তন পূর্বক আগামী কাল থেকে ধারাবাহীক কর্মসূচী ঘোষণা করেছে সংগঠনটিঃ

কর্মসূচীগুলো হলো-
১। ২৬শে এপ্রিল বৃহস্পতিবার তিন পার্বত্য জেলা সদরে (রাঙ্গামাটি,খাগড়াছড়ি,বান্দরবান) বিক্ষোভ মিছিল,  ২৮শে এপ্রিল শনিবার তিন পার্বত্য জেলার সকল উপজেলা সমূহতে মানব বন্ধন, ২৯ এপ্রিল পার্বত্য চট্টগ্রাম বাঙ্গালী গণহত্যা দিবস পালন,  ৩০শে এপ্রিল তিন পার্বত্য জেলায় (রাঙ্গামাটি,খাগড়াছড়ি,বান্দরবান) জেলা প্রশাসক কার্যালয় ঘেরাও ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারকলিপি প্রধান।
উক্ত কর্মসূচীতে তিন পার্বত্য জেলার (রাঙ্গামাটি,খাগড়াছড়ি,বান্দরবান) এর সকল স্তরের জনগণকে উক্ত কর্মসূচী সর্বাত্মক এবং শান্তিপূর্ণভাবে পালনের বিনীত আহব্বান জানিয়েছে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক প্রকৌশলী শাহাদাত ফরাজী সাকিব। সন্ধ্যায় গনমাধ্যমে পাঠানো সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী শাহাদাত ফরাজী সাকিব স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বর্তমানে পার্বত্য চট্টগ্রামে উপজাতি সন্ত্রাসীগোষ্ঠী প্রশাসনের এহেন নিষ্ক্রিয় দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে অত্র অঞ্চলে সাধারণ বাঙ্গালীদের পাশাপাশি সাধারণ উপজাতি হত্যা, ধর্ষণ, খুন, গুম, চাঁদাবাজি দিন দিন অতিমাত্রায় ক্রমান্বয়ে বেড়েই চলছে বলে উদ্ধেগ প্রকাশ করা হয়। প্রসঙ্গত, গত ১৬ এপ্রিল মহালছড়ি উপজেলার মাইসছড়ি এলাকায় কাঠ কিনতে গিয়ে নিখোঁজ হন মাটিরাঙা উপজেলার তিন কাঠ ব্যবসায়ী। নিখোঁজের ৮ দিন অতিবাহিত হলেও এখনও পর্যন্ত তাদের কোন সন্ধান মেলেনি।