Homeস্লাইড নিউজপাহাড়ের সংবাদ

ইউপিডিএফ নেতা হত্যার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ

ডেস্ক রিপোর্ট: শাসকশ্রেণীর ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নকারী এজেন্ট পেলে, বর্মা গংদের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলুন মাটিরাঙ্গা ও গুইমারা উপজেলা ইউপিডিএফ-এর সমন্ব

খাগড়াছড়িতে ইউপি মেম্বার হত্যার ঘটনায় মামলা
বিজিবি গুইমারা সেক্টরের ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত
ব্রেকিং নিউজ: রামগড়: নৌকা- ২৪,১৩১ভোট, মোট ভোটার – ৪৫,৮৫২জন

ডেস্ক রিপোর্ট: শাসকশ্রেণীর ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নকারী এজেন্ট পেলে, বর্মা গংদের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলুন মাটিরাঙ্গা ও গুইমারা উপজেলা ইউপিডিএফ-এর সমন্বয়ক সুনীল বিকাশ ত্রিপুরা (কাথাং)-কে গুলি করে হত্যার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি), হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও গনতান্ত্রিক যুব ফোরাম খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

আজ রবিবার (২২ এপ্রিল ২০১৮) বিকাল ৫টায় মিছিলটি খাগড়াছড়ি জেলা সদর উপজেলা গেইট থেকে বের হয়ে নারাঙহিয়া রেড স্কোয়ার হয়ে স্বনির্ভর বাজার শহীদ অমর বিকাশ চাকমা সড়কে গিয়ে এক প্রতিবাদ সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি দ্বিতীয় চাকাম প্রমুখ।

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, ইউপিডিএফ নেতা সুনীল ত্রিপুরা ও তার এক সহকর্মী পরেশ ত্রিপুরাসহ আজ সকাল সাড়ে ১১টায় খাগড়াছড়ি জেলা পানছড়ি উপজেলা উল্টোছড়ি ইউনিয়ন মরাটিলা নামক এলাকায় একটি দোকানে বসে থাকার সময় পানছড়ি দিক থেকে সিএনজি যুগে আসা ৪ জন সন্ত্রাসী অস্ত্র দিয়ে তাদের লক্ষ্য করে ব্রাশ ফায়ার চালালে ঘটনাস্থলে সুনীল বিকাশ ত্রিপুরা নিহত হন ও অনন্ত ত্রিপুরা(২৫) নামে অপর এক সাধুর পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। এসময় পরেশ ত্রিপুরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

বক্তারা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি জনগণের ন্যায্য আন্দোলনকে ধ্বংস করতে সরকার রাষ্ট্রীয় বাহিনী একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তারা পাহাড়ে জনগণের প্রকৃত আন্দোলনকারী পার্টি ইউপিডিএফকে ধ্বংস করার জন্য তাদের সৃষ্ট নব্য মুখোশ-সংস্কার পন্থীদের জোট বেধে দিয়ে ইউপিডিএর নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের হত্যা-গুম-খুন-অপহরণসহ বিভিন্নভাবে অন্যায় অত্যাচার করছে। বক্তারা, অবিলম্বে ইউপিডিএফ নেতা সুনীল বিকাশ ত্রিপুরাসহ এযাবৎকালে সন্ত্রাসী পেলে-বর্মা-জুলেয়্যা গংদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।