গুইমারা’র কুকিছড়াতে বৌদ্ধ বিহার ও মূর্তি ভাংচুর’র প্রতিবাদে মিছিল, আল্টিমেটাম

স্টাফ রিপোর্টার: খাগড়াছড়ি’র গুইমারা উপজেলার হাফছড়ি ইউনিয়নের দূর্গম কুকিছড়া এলাকায় রাতের আধারে বৌদ্ধ বিহার ও বৌদ্ধ মুর্তি ভাংচুরের প্রতিবাদ মিছিল হয়েছে

মানিকছড়িতে এক স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত
মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার বন্ধ ও নির্বাচনী পরিবেশ সৃষ্টির দাবিতে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির প্রেস ব্রিফিং
খাগড়াছড়িতে ক্রিকেট উৎসব

স্টাফ রিপোর্টার: খাগড়াছড়ি’র গুইমারা উপজেলার হাফছড়ি ইউনিয়নের দূর্গম কুকিছড়া এলাকায় রাতের আধারে বৌদ্ধ বিহার ও বৌদ্ধ মুর্তি ভাংচুরের প্রতিবাদ মিছিল হয়েছে।

বিহার ও বৌদ্ধ মুর্তি ভাঙ্গার প্রতিবাদে মঙ্গলবার বিকেলে গুইমারা রামসু বাজার এলাকা থেকে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী সহস্রাধিক নারী-পুরুষের এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি গুইমারাউপজেলা প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর বাধা উপেক্ষা করে মিছিলটি গুইমারা রিজিয়নের সংরিক্ষত এলাকায় প্রবেশ করতে চাইলে পুলিশের ব্যরিকেডে মধ্যে গুইমারা ব্রীজের যান চলাচল বন্ধ করে প্রতিবাদ সভা করে। এতে বক্তব্য রাখেন গুইমারা দেওয়ানপাড়া মিশন বৌদ্ধ বিহারের ভিক্ষু জ্যোতিসারা ভান্তে। এসময় তিনি ২৪ঘন্টার মধ্যে দোষীদের গ্রেফতার করে শাস্তির আওতায় না আসলে প্রবারণা পূর্নিমা বর্জন সহ লাগাতার আন্দোলনের ঘোষণা দেন।
এতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সালাহ উদ্দিন, গুইমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার পঙ্কজ বড়ুয়া গুইমারা ভার অফিসার ইনচার্জ গিয়াস উদ্দিন, গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মেমং মারমা, সিন্দুকছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রেদাক মারমা সহ জনপ্রতিনিধি ও সরকারী কর্মকর্তারা এঘটনার সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ তদন্তের পাশাপাশি দোষীদের গ্রেফতার ও শাস্তির আওতায় আনা হবে বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

২২অক্টোবর গভীর রাতে দুস্কৃতিকারী কে বা কাহারা বিহারে ঘর ভেঙ্গে ঘরের বিভিন্ন অংশ পাশে ও সিমেন্টের তৈরী বৌদ্ধ মুর্তি ভাংচুর করে পালিয়ে যায়। এসময় বৌদ্ধ বিহারে কোন ভিক্ষু বা লোকজন ছিল না।

বৌদ্ধ বিহার ও মুর্তি ভাংচুরের ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। সকল প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিভিন্ন পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি নিরাপত্তা বাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে বলে গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ গিয়াস উদ্দিন জানান।