খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদমহালছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

মহালছড়িতে ইউপি নির্বাচনে এবার ইউপিডিএফ-জেএসএস অংশ নিচ্ছে না !

মহালছড়ি প্রতিনিধি: প্রত্যেকটি স্থানীয় নির্বাচন কিংবা জাতীয় নির্বাচন ঘনিয়ে আসলে নিজ দলের মনোনীত প্রার্থী দাড় করতে পার্বত্যচট্টগ্রামের আঞ্চলিক দলগুলোর নানা তৎপরতা দেখা যায়। তবে, এবারে মহালছড়ি উপজেলায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন নিয়ে আঞ্চলিক দলগুলোর কিছুটা ব্যাতিক্রমী তৎপরতা। ক্যায়াংঘাট ইউনিয়নের নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন, এম এন লারমা পন্থী জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)’র সরাসরি কোন প্রার্থী না থাকলেও নিজ দলের নিয়ন্ত্রিত এলাকার কোন না কোন প্রার্থীকে সমর্থন দিয়েছেন। ফলে ওইসব এলাকার প্রার্থীদের জেএসএস এর সমর্থন থাকায় কোন ব্যাক্তি ওই প্রার্থীর সাথে প্রতিদ্বন্ধিতা করার সাহস পায়নি। এ কারণে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন অধিকাংশ প্রার্থী।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন নিয়ে দলীয় অবস্থান সম্পর্কে মহালছড়িতে আঞ্চলিক দল এম এন লারমা পন্থী জেএসএস এর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি চাকমা বলেন, কৌশলগত কারণে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জেএসএস নির্বাচনে অংশ নেবে। তবে কোন কোন ক্ষেত্রে এলাকার জনসাধারণের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে জনপ্রিয় ব্যক্তিকে প্রার্থী হিসেবে জেএসএস এর পক্ষ থেকে মৌন সমর্থন দেওয়া হয়েছে। এতে কেউ কেউ নিশ্চিত পরাজয় মেনে নিয়ে কোন কোন প্রার্থী তাঁর প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়েছে। কাউকে জোর করে কিংবা শক্তি প্রয়োগ করে প্রার্থীতা প্রত্যাহারে বাধ্য করা হয়নি।

ইউপি নির্বাচন নিয়ে আরেকটি আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল প্রসিত পন্থী ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এর মহালছড়ি উপজেলা সংগঠক দিগন্ত চাকমা বর্তমান সরকারের আমলে কোন নির্বাচনে অংশ নেয়া সম্ভব নয় মন্তব্য করে বলেন, আসন্ন ইউপি নির্বাচনেও কোন দল অংশ নেয়ার মতো পরিবেশ নেই। বর্তমান সরকার নিজ দলের প্রার্থীকে জেতানোর জন্য নির্বাচনী নাটকের মঞ্চস্থ করার আয়োজন করেছে মাত্র। এ ধরণের পরিস্থিতিতে ইউপিডিএফ নির্বাচন থেকে দূরে থেকে নিরপেক্ষ অবস্থান নেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) নামের আরেক সংগঠন আসন্ন নির্বাচন নিয়ে তেমন কোন তৎপরতা নেই বললে চলে। নির্বাচন কমিশন এর ৩য় ধাপে ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মহালছড়িতে ৪ ইউনিয়নে ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) ভোট হবে আগামী ২৮ নভেম্বর।