রাঙ্গুনিয়ায় জমে ওঠেছে শতাধিক পশুর হাট

শান্তি রঞ্জন চাকমা, রাঙ্গুনিয়া:  রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় প্রায় শতাধিক বাজারে কোরবানি উপলক্ষে পশুর হাট বসানো হয়েছে। এ বছর দেশের বাইরে থেকে প্রচুর পশু এসেছে।

রাঙ্গুনিয়ায় ১৫৭টি মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু
খলিফা মোস্তফা কামাল মাইজভাণ্ডারীর দাফন সম্পন্ন
মাইজভান্ডার ওরশ: ঝঁড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে লাখো ভক্তের ঢল

শান্তি রঞ্জন চাকমা, রাঙ্গুনিয়া:  রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় প্রায় শতাধিক বাজারে কোরবানি উপলক্ষে পশুর হাট বসানো হয়েছে। এ বছর দেশের বাইরে থেকে প্রচুর পশু এসেছে। ভাসমান হাটে পশু আসলেও বিক্রি তেমন নেই। দেশী গরুর তুলনায় বার্মা ও ভারতের গরুর দাম কম। তাই ভিনদেশী পশুর দিকে ঝুঁকছেন সাধারন ক্রেতারা। পশুর হাট মুল সড়কে না বসানোর জন্য রাঙ্গুনিয়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্দেশ দেয়া হলেও তা অনেক স্থানে মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। কয়েকটি পশুর হাটে অতিরিক্ত হাসিল আদায় করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

উপজেলার চন্দ্রঘোনা লিচুবাগান ফেরীঘাট রোড, রাইখালী, কোদালা বাজার, শিলক বৃহচক্রহাট, বাঙ্গালহালিয়া বাজার, পদুয়া রাজারহাট খেলার মাঠ, দশমাইল মুক্তিযোদ্ধা বাজার, সরফভাটা মীরেরখীল, সিকদার পাড়া, বেতাগীর মীর্জাখীল, বালুর চর, রামগতি হাট, পোমরার শান্তিরহাট, মালিরহাট, বুড়ির দোকান, হাজীপাড়া, পৌরসভার রোয়াজারহাট, গোডাউন এলাকা, চৌমুহনী বাজার, পারুয়ার সাহাব্দিনগর, হাজানীহাট, কাটাখালী, দক্ষিন রাজানগরের ধামাইরহাট বাজার, রাজারহাট, ইসলামপুরের গাবতল, রাজানগরের রানীরহাট সহ প্রায় শতাধিক ভাসমান পশুর হাট বসানো হয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে বড় জাতের প্রচুর দেশীয় পাহাড়ি গরু এনেছেন ব্যবসায়ীরা।

রানীরহাট বাজারের দেশীয় গরু ব্যবসায়ী মো. আব্দুল সালাম বলেন, প্রচুর গরু হাটে আসলেও বেচাকেনা খুবই কম। ক্রেতারা কয়েকটি বাজার যাচাই বাছাই করে নিজের পছন্দমত পশু ক্রয় করবেন। ভিনদেশী চেয়ে দেশী পশুর দাম একটু বেশী। তারপরও ব্যবসায়ীরা হতাশ নয়। ক্রেতা মো. করিম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রানীরহাট থেকে একটি দেশীয় গরু ক্রয় করি। তার কাছ থেকে অতিরিক্ত হাসিল আদায় করা হয়েছে বলে জানান। অতিরিক্ত হাসিল নেয়ার ব্যাপারে প্রতিবাদ জানালে তাকে নাজেহাল করা হয় বলে তিনি জানান।

চন্দ্রঘোনা মাহাবুব আলম চাষীফার্মে পশু খামারী ফরিদ আহমদ বলেন, খামারে ১৫টি দেশীয় গরু পালন করেন। হাটে গরু তোলা হলেও ক্রেতারা সংখ্যা খুবই কম। গত বছরের চেয়ে এবার গরুর দাম কম। ঈদুল আযহার দু’একদিনের আগে পশুর বাজার জমে উঠবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। চন্দ্রঘোনা লিচুবাগান ব্যবসায়ী সমিতির মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, ইতোমধ্যে ভিনদেশের পশু বাজারে এসেছে এবং আসার পথে। দেশের বিভিন্ন জেলা হতে পশু আসলে গত বছরের চেয়ে দাম কমতে পারে। পদুয়া রাজারহাটের দত্ত বাবু বলেন, ভাসমান পশুর হাট গুলো জমে উঠতে শুরু করেছে। ক্রেতা-বিক্রেতারা সাচ্ছন্দ্যে নিজের পছন্দ মত পশু ক্রয় করছেন। পদুয়া গ্রামের সফল পশু খামারী এরশাদ মাহমুদ বলেন, দশমাইল মুক্তিযোদ্ধা বাজারে হাসিল বিহীন পশুর বাজার জমতে শুরু করেছে।