খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদদীঘিনালাপাহাড়ের সংবাদলক্ষ্মীছড়িশিরোনামস্লাইড নিউজ

লক্ষ্মীছড়ি আনসার-ভিডিপি প্রশিক্ষক সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

স্টাফ রিপোর্টার: খাগড়াছড়ি জেলার লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা আনসার-ভিডিপি কার্যালয়ের প্রশিক্ষক মো: সিরাজুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করার খবর পাওয়া গেছে।

গত ১২ এপ্রিল বুধবার মো: আব্দুর রহমান,পিতা-মো: আরব আলী, সাং ছোট মেরুং, দীঘিনালা, খাগড়াছড়ি কর্তৃক দায়ের করা মামলায় খাগড়াছড়ি যুগ্ম জেলা জজ মাহমুদুল হাসানের আদালত আসামী মো: সিরাজুল ইসলাম খান (নিরব), পিতা- মো: মুনসুর আলী খান, সাং পাঁচখোলা মহিষেরচর, সদর উপজেলা, মাদারীপুর পলাতক থাকায় এ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। খাগড়াছড়ি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেড(আমলী) আদালত সূত্রে জানা যায়, বিগত ১৬/১১/২০২১ইং তারিখে খাগড়াছড়ি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেড(আমলী) আদালতে লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা আনসার-ভিডিপি কার্যালয়ের প্রশিক্ষক মো: সিরাজুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে মো: আব্দুর রহমান,পিতা-মো: আরব আলী, সাং ছোট মেরুং, দীঘিনালা, খাগড়াছড়ি বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং সি.আর ১৫/২০২১। এস.টি ১৫/২০২২ ধারা: ১৩৮, দি নেগোশিয়েবল অব ইন্সট্যুমেন্ট এ্যাক্ট এর শাস্তিযোগ্য অপরাধে এই মামলা রুজু করা হয়।

মামলার আরজিতে বলা হয় বাদী কর্তৃক সেগুণ কাঠ ও গামারী কাঠ বিক্রি বাবদ সকল হিসেব নিকেশ শেষে ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা পাওনা হই। বিগত ১০/০৬/২০২১ ইং এবং ১৭/০৬/২০২১ ইং তারিখে বাদীকে আসামীর নামীয় ইসলামী ব্যাংক মাদারীপুর শাখার যার হিসাব নাম্বার ২০৫০২১৭০২০৩৫০৯১১৬ এর অনুকূলে ২টি চেক ইস্যু করেন। বাদী চেক ২টি নগদায়নের জন্য ১২/০৯/২০২১ইং তারিখে ইসলামী ব্যাংক খাগড়াছড়ি শাখায় জমা দিলে অপর্যাপ্ত তহবিল দেখিয়ে চেক ডিজঅনার করেন যা দি নেগোশিয়েবল অব ইন্সট্যুমেন্ট এ্যাক্ট ১৩৮ ধারা মতে শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এদিকে চেক ডিজঅনার হওয়ার পর বাদীর পক্ষ হতে লিগ্যোল নোটিশ পাঠানো হয়। বাদী পক্ষের মামলাটি পরিচালনা করছেন এ্যাড. গৌরি প্রভা দে। মামলার বাদী আব্দুর রহমান বলেন, আমি প্রাথমিক পর্যায় খাগড়াছড়ি জেলা কমান্ডেন্ট বরাবরে লিখিত অভিযোগ করি, কিন্তু সেখান থেকে আশানুরুপ কোনো জবাব পাইনি। নিরুপায় হয়ে আমি মামলা করেছি, আদালতের কাছে সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

অপর দিকে মহালছড়ি উপজেলার মো: ইসমাইল হোসেন মো: সিরাজুল ইসলামের কাছে সেগুন গামারিসহ বিভিন্ন প্রজাতির এক ট্রাক কাঠ যার বাাজর মূল ৫লাখ ৮৬ হাজার টাকা। উক্ত টাকা পরিশোধ না করে সময় ক্ষেপন করছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মো: ইসমাইল হোসেন এ প্রতিবেদককে বলেন আনুমানিক ৬/৭মাস অতিবাহিত হয়েছে এক ট্রাক কাঠ নিয়েছে আমার থেকে যার বাজার দর ৫লাখ ৮৬হাজার টাকা। বার বার সময় নিচ্ছে কিন্তু কোনো টাকা এখনো পর্যন্ত দিচ্ছে না। আমি আর বেশি সময় দিবো না খুব শিগ্রই তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিবো বলে তিনি জানান। এ বিষয়ে জানতে মো: সিরাজুল ইসলামের মুঠোফোনে বারবার সংযোগে চেষ্টা করা হলেও কল রিসিভ করেন নি।

উল্লেখ্য লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা আনসার-ভিডিপি কার্যালয়ের প্রশিক্ষক মো: সিরাজুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে ভিডিপি সদস্যদের নামে ঋণ জালিয়াতির মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ, সরকারি সম্মানীর ভাতা না দিয়ে পকেটস্থ করাসহ চাকুরি দেয়ার নামে ঘুষ বাণিজ্যের নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ ইতে মধ্যেই পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। কর্তৃপক্ষ সুষ্ঠু তদন্ত করে বিহীত ব্যবস্থা নিবে এমনটাই আশা করছে ভুক্তভোগিরা।