খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদরামগড়শিরোনামস্লাইড নিউজ

অবশেষে মুক্তি পেলো রামগড়ের অপহৃতরা

পাহাড়ের আলো: জেলার রামগড় উপজেলার যৌথখামার এলাকা থেকে অপহৃত সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের কাভার্ড ভ্যান চালক ও রানার ছাড়া পেয়েছেন। ১১  এপ্রিল সোমবার রাত আনুমানিক ১০টার দিকে ওই দুইজনকে হাত আর চোখ বেঁধে অজ্ঞাত স্থানে ছেড়ে দিয়েছে অপহরণকারীরা।

অপহৃতদের মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে রামগড় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামছুজ্জামান বলেন, ‘অপহৃত আব্বাসের সাথে ছাড়া পাওয়ার বিষয়ে কথা হয়েছে।’

অপহৃত চালক আব্বাসের খালাতো ভাই রুবেল সাংবাদকদের জানান, তার ভাই ঢাকার বাসায় ফিরেছেন। তবে শারীরিকভাবে অসুস্থ্য তিনি, তাই বিশ্রামে রয়েছেন। আর মুক্তির বিষয়ে কোম্পানী সকল ব্যবস্থা করেছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের খাগড়াছড়ি’র ব্যবস্থাপক মো. সালাউদ্দিন জানান, মুক্তি পাওয়ার পর তারা কুরিয়ার সার্ভিসের ফেনী অফিস হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তবে মুক্তিপণের বিষয়ে কিছুই জানেন না তিনি।

অনুসন্ধানে জানা যায়, অপহৃতদের ছাড়তে তিন লাখ টাকা মুক্তিপণ দিয়েছে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ। যদিও অপহরণকারীদের দাবী ছিলো পাঁচ লাখ টাকা, তবে অনেক দেন-দরবারের পর তিন লাখ টাকায় মুক্তি মেলে তাদের। এছাড়া খাগড়াছড়িতে কুরিয়ারের ব্যবসা চালু রাখতে বাৎসরিক চাঁদা পরিশোধ করে টোকেন নেওয়ার শর্তে অপহরণকারীদের সাথে সমঝোতা হয় কুরিয়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষের।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার রাতে খাগড়াছড়ি জেলা শহর থেকে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের কাভার্ড ভ্যান (ঢাকা মেট্রো-উ-১৪১৪০৭) ঢাকা যাচ্ছিলো। রামগড়-জালিয়াপাড়া সড়কের যৌথখামার এলাকা অতিক্রম করার সময় মোটরসাইকেলে করে আসা ৮ থেকে ১০ জন অস্ত্রধার কাভার্ড ভ্যানটির গতিরোধ করে চালক মো. আব্বাস ও রানার মো. আল-আমিনকে অপহরণ করে।  এসময় কাভার্ড ভ্যানটিতে ছিলো হেলপার মো. সোলায়মান, তবে তাকে রেখে যায় অপহরণকারীরা।