নিয়োগ ও বাতিল সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে হেডম্যান-কার্বারীদের মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার: পার্বত্য চট্টগ্রামের ঐতিহ্য ও পার্বত্য চুক্তির সাথে অসামঞ্জস্যপূর্ণ রেখে হেডম্যান নিয়োগ স্থায়ী ও বদলী-পদায়নের সিদ্ধান্ত বাতিল ও ষড়যন্

পরীক্ষা দিতে না পারার প্রতিবাদে মহালছড়িতে মানববন্ধন
মানিকছড়ির স্কুল-মাদ্রাসায় বির্তক ও সংগীতানুষ্ঠান
মাটিরাঙ্গায় ভারতীয় শাড়িসহ ২ ছাত্রলীগ নেতা আটক

স্টাফ রিপোর্টার: পার্বত্য চট্টগ্রামের ঐতিহ্য ও পার্বত্য চুক্তির সাথে অসামঞ্জস্যপূর্ণ রেখে হেডম্যান নিয়োগ স্থায়ী ও বদলী-পদায়নের সিদ্ধান্ত বাতিল ও ষড়যন্ত্রকারীদের শাস্তির দাবিতে খাগড়াছড়িতে মানববন্ধন করেছেন হেডম্যান ও কার্বারীরা। ২৪ জুন রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবের সামনে খাগড়াছড়ি জেলা হেডম্যান এসোসিয়েশনের আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সিএইচটি হেডম্যান নেটওয়ার্ক’র সভাপতি কংজরী চৌধুরী, খাগড়াছড়ি জেলা হেডম্যান এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক স্বদেশ প্রীতি চাকমা ও সাংগঠনিক সম্পাদক হিরণ জয় ত্রিপুরা।

বক্তারা বলেন, ২০১৭ সালের ঢাকায় অনুষ্ঠিত জেলা প্রশাসক সম্মেলনে তিন পার্বত্য জেলার জেলা প্রশাসকগণ হেডম্যানদের রাজস্ব খাতে স্থায়ী নিয়োগসহ বদলী ও পদায়নের যে প্রস্তাব দিয়েছেন তা পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির সাথে সংঘর্ষপূর্ণ। শতবছরের পুরানো ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি ধ্বংসে লিপ্ত হওয়া এবং সংবিধান পরিপন্থী কর্মকা-ের দায়ে তৎকালীন জেলা প্রশাসকদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ আশা করেন বক্তারা। মানববন্ধন শেষে মৌন মিছিল করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে অবিলম্বে ঐতিহ্য ও চুক্তি পরিপন্থী সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে জেলা প্রশাসক মো: রাশেদুল ইসলামের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন হেডম্যান ও কার্বারীরা।

উল্লেখ্য, খাগড়াছড়ি জেলায় মং ও চাকমা সার্কেল মিলে ১২১ টি মৌজা রয়েছে। প্রত্যেক মৌজায় একজন করে হেডম্যান বংশপরম্পরায় শতবছর ধরে ১৯০০ সালের পার্বত্য চট্টগ্রাম আইনের আলোকে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।