খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদগুইমারাপাহাড়ের সংবাদশিরোনামস্লাইড নিউজ

গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা’র বিদায় সংবর্ধনা

গুইমারা প্রতিনিধি: গুইমারা উপজেলার,গুইমারা মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের অডিটরিয়াম ভবনে গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তুষার আহমেদ এর বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বাবু কংজরী চৌধুরী।

১৩ জুলাই বুধবার গুইমারা মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাবলু হোসেন এর সঞ্চালনায় গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তুষার আহম্মেদের বিদায় সংবর্ধনায় উপস্থিত ছিলেন, গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও নব নির্বাচিত গুইমারা উপজেলা পরিষদের চোয়ারম্যান বাবু মেমং মারমা, গুইমারা থানার অফিসার ইনর্চার্জ জনাব মোঃ মিজানুর রহমান, হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চৌধুরী, উপজেলা প্রাণী ও সম্পদ বিষয়ক কর্মকর্তা ডা. মোঃ আলমগীর হোসেন, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ম্রাসাথয়াই মগ, গুইমারা মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের  সাবেক প্রধান শিক্ষক সুশীল রঞ্জন পাল, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি সমিরণ পাল, গুইমারা প্রেসক্লাবের সভাপতি নুরুল আলম, গুইমারা সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নির্মল নারায়ন ত্রিপুরা, হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মংশে চৌধুরী, সিন্দুকছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেদাক মারমা সহ, মুক্তিযুদ্ধা, জনপ্রতিনিধি, হেডম্যান, কার্বারী ও সাংবাদিক বৃন্দ।

বিদায় কালে গুইমারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তুষার আহমেদ বলেন, প্রায় ৩বছর যাবৎ এই গুইমারা উপজেলার দায়িত্বে ছিলাম। এসময় এই উপজেলা দুর্গম এলাকায় গিয়ে অসহায়দের মাঝে ঘরসহ বিভিন্ন সহযোগিতা মূলক কাজ করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। বদলী জনীত কারনে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যেতে হয়। যাওয়াটা বেদনা দায়ক। হয়তো আগামী দিনে আবারো দেখা হবে, সেই প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর সহধর্মীনি তার বক্তব্যে বলেন, খুবই কম সময় আমি এই উপজেলায় ছিলাম। তবে এই অল্প সময়ের মধ্যে এলাকার লোকজন যে আন্তরিকতা দেখিয়েছে এগুলো আমার জীবনে চিরভাস্মর হয়ে থাকবে।

পরিশেষে সভার সভাপতি বাবু কংজরী চৌধুরী এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তুষার আহমেদকে বিদায় অনুষ্ঠানে ২ বছরের অধিক সময়ের কর্মজীবনের স্মৃতি চারণ করে, তিনি বলেন, এলাকাবাসীর দারপ্রান্তে গিয়ে নির্বাচন, করোনা ভাইরাস ও সরকারি ঘর সহ নানান কাজে তিনি প্রশংসিত হয়েছেন। সেটি এলাকাবাসী চিরকাল মনে রাখবে। এছাড়াও বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরষ্কার বিতরনী শেষে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন। পরবর্তিতে অনুষ্ঠানে উপস্থিত নেতৃবৃন্দরা প্রীতি ভোজে অংশ নেন।