খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদরামগড়শিরোনামস্লাইড নিউজ

জেলা প্রশাসকের জমি ও মডেল মসজিদ নির্মাণ স্থান পরিদর্শণে এডিসি

রামগড়(খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি: রামগড়ে বিরোধপূর্ণ সাবেক মহকুমা শহর এসডিও বাংলো এলাকা ও উপজেলা মডেল মসজিদ নির্মাণের জন্য নির্ধারিত স্থানে বিজিবি কর্তৃক নতুন করে অবৈধভাবে কাটা তারের বেড়া নির্মাণের স্থান বৃহ:বার (৪ আগস্ট) দুপুর ১২ টায় সরেজমিনে পরিদর্শন করেন খাগড়াছড়ি জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কাজী মোঃ আলীমউল্লাহ। এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খোন্দকার মো. ইখতিয়ার উদ্দীন আরাফাত, পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলম কামাল, রামগড় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক কাজী নুরুল আলম, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসিনা বেগম, ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার ফারুক, পৌর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের, ও অন্যান্য জনপ্রতিনিধিগণ, স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ ও সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। খাগড়াছড়ি জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কাজী মোঃ আলীমউল্লাহ স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, উক্ত ভূমিতে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্প উপজেলা মডেল মসজিদ নির্মাণের জন্য স্থান নির্ধারিত আছে। এছাড়াও উপজেলা শিক্ষা ভবন, উপজেলা ভূমি অফিস, উপজেলা মৎস্য অফিস নির্মাণের জন্য স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, প্রস্তাবিত জমিতে এখনো অবৈধ ভাবে ৪৩ বিজিবি অধীনস্ত বিশেষ ক্যাম্পে সম্প্রতি কাঁটাতারের বেড়াদিয়ে আবদ্ধ করে রেখেছে। যা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ কর্তৃক জেলা প্রশাসকে ন্যাস্ত নির্দেশনা অমান্য করেছে ৪৩ বিজিবি কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে- ৪৩ বিজিবি’র উপ অধিনায়ক মেজর মো. মনিরুজ্জামান জানান,বিরোধপূর্ণ জমি সম্প্রতি পরিদর্শণ সহ তাদের ক্যাম্পের নিরাপত্তার আলোকে কাঁটাতারের বেড়া মেরামত করা হয়।

উল্লেখ্য, উক্ত ভূমিতে ইতোপূর্বে বিজিবি রামগড় ব্যাটালিয়ন কর্তৃক কাঁটাতারের বেড়া স্থাপন করা হলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের স্মারক নং ৪৪.১০.০০০০.১১৬.২৪.০২২.১৯ (অংশ-২)-১৯২, তারিখ ২৮.১১.২০২১ মূলে অবৈধভাবে দখলকৃত জমির বিষয়ে বিদ্যমান আইন ও বিধিমালার আলোকে সরকারী স্বার্থ সংরক্ষণের নিমিত্ত পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা প্রশাসক খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলাকে নির্দেশ দেয়া হয়। সেই আলোকে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক থেকে ৪৩ বিজিবিকে চিঠি দিয়ে উপজেলা পরিষদের নামীয় ভূমি হইতে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে অনুরোধ জানানো হয়।