খাগড়াছড়িখাগড়াছড়ি সংবাদপাহাড়ের সংবাদরামগড়শিরোনামস্লাইড নিউজ

রামগড়ে বিএনপি’র সমাবেশে হামলা; পাল্টা পাল্টি অভিযোগ

রামগড়(খাগড়াছড়ি)প্রতিনিধি: দেশ ব্যাপী দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচি পালনকে কেন্দ্র করে রামগড়ে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশের উপর হামলার ঘটনায় আ’লীগ-বিএনপি পাল্টাপাল্টি অভিযোগ।
শনিবার (৫ মার্চ) বিকেলে এ ঘটনায় উপজেলা বিএনপির পক্ষ থেকে আওয়ামী লীগকে দায়ী করা হয়। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দাবী করা হয় বিএনপির সমাবেশ থেকে কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আরাফাত হোসেনকে উদ্দেশ্য করে উসকানিমূলক বক্তব্য ও তাকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছোঁড়া হয়েছে।
এঘটনার প্রতিবাদে সন্ধ্যায় রামগড় পৌর শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করে যুবলীগ- ছাত্রলীগ। এতে বাজারের কয়েকটি স্থানে মিছিলসহ বিক্ষোভ চলাকালে ফটকা ফাটানো হলে তখন হঠাৎ জনমনে আতংক ছড়িয়ে পড়ে।
ঘটনার বিষয়ে রামগড় উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল হক নুরু অভিযোগ করে বলেন, শনিবার দেশব্যাপী চাল, ডাল, তেলসহ দ্রব্যমূল্যর দাম উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে আমাদের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ প্রদর্শন শেষে উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন ভূঁইয়ার বাসভবন বনবিথীতে দলীয় নেতাকর্মীরা আলাপ আলোচনা করছিল। এসময় আ’লীগের কতিপয় সমর্থক অতর্কিত ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে বাসভবনের কয়েকটি জানালার কাঁচ ভেঙ্গে যায় এবং বাসভবনে সামনে রাখা নেতাকর্মীদের কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়।
এদিকে রামগড় পৌর আ’লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র রফিকুল আলম কামাল বিএনপির আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আরাফাত হোসেন রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বেলায়েত ভূঁইয়ার বাসভবন থেকে তাকে উদ্দেশ্য করে উসকানিমূলক কথাবার্তা ও ইটপাটকেল ছুঁড়ে মারে।
এদিকে জেলা বিএনপি এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সাফায়েত মোর্শেদ ভূইয়া মিঠুর বাসভবন ভাঙচুর ও নেতাকর্মীদর ব্যবহৃত ৪ টি যানবাহন মোটরসাইকেল এবং একটি টমটম (ব্যাটারি চালিত অটো রিকশা) ভাঙচুর চালিয়ে ত্রাসের সৃষ্টি করেছে।
এ ন্যাক্কারজনক হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও জেলা বিএনপির সভাপতি, সাবেক এমপি ওয়াদুদ ভূইয়া।
তিনি নেতাকর্মী দের উপর হামলা ও বাসভবন ভাঙচুরে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন।
হামলার বিষয়ে রামগড় থানার ওসি (তদন্ত) রাজিব চন্দ্র কর বলেন, বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।