• June 22, 2024

ব্যাডমিন্টন খেলা নিয়ে বাকবিতণ্ডা চাপাতির কোপে কিশোরের পা বিচ্ছিন্ন

 ব্যাডমিন্টন খেলা নিয়ে বাকবিতণ্ডা চাপাতির কোপে কিশোরের পা বিচ্ছিন্ন
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: খাগড়াছড়িতে ব্যাডমিন্টন খেলাকে কেন্দ্র করে তুচ্ছ ঘটনার জেরে তর্কবিতর্ক থেকে রাকিব হাসান (১৬) নামের এক কিশোরকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে। এতে ওই কিশোরের একটি পা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে কোন রকমে ঝুলে আছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে জেলা সদরের শালবন এডিসিহিল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত ব্যক্তিকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী কিশোরের বাবা বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ ও আরও তিন-চারজনকে অজ্ঞাত আসামি করে সদর থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার পর পুলিশ জড়িতদের একজনকে গ্রেফতার করেছে। ভুক্তভোগী ও থানা সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরিফুল ইসলাম বলেন, ব্যাডমিন্টন খেলাকে কেন্দ্র করে তর্ক বিতর্কের জেরে রাকিব নামে এক কিশোরকে কুপিয়ে গুরুতর জখমের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী কিশোর বর্তমানে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তিনি বলেন, হামলার ঘটনায় কিশোরের বাবা বাদী হয়ে একটি হত্যা চেষ্টা মামলা করেছেন। এতে চারজনের নাম উল্লেখ ও ৩-৪ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। ওসি বলেন, আসামিরা হলেন আব্দুর রহিমের ছেলে মো. হোসেন (২২), আবুল কাশেমের ছেলে মো. রায়হান (২৪), শহিদের ছেলে মো. হানিফ (২৩) ও আবজাল হোসেনের মো. অনিক (২৪)। তারা সবাই জেলা সদরের শালবন এডিসিহিলের বাসীন্দা। মামলার পর হানিফকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। অন্যদের ধরতে অভিযান চলছে।
ভুক্তভোগী কিশোরের বাবা রফিকুল ইসলাম জানান, গত সোমবার রাত ৯টার দিকে এডিসিহিল এলাকায় ব্যাডমিন্টন খেলতে গিয়ে আসামিদের সঙ্গে বাকভিতন্ডা হয়। পরবর্তীতে স্থানীয়রা বিষয়টি মিটমাট করে দেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে ভুক্তভোগী রাকিব বাসা থেকে বের হয়ে স্থানীয় আবু বকরের বাসার সামনে গেলে আসামীরা তাকে চাপাতি দিয়ে এলোপাতারি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এসময় তার চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানান, রাকিবের পা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা। আজ বৃহস্পতিবার তার পায়ে অস্ত্রোপচার হওয়ার কথা রয়েছে। এ বিষয়ে খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মো. নাইমুল হক বলেন, হামলার ঘটনায় ভুক্তভোগী কিশোরের বাবা একটি মামলা করেছেন। আসামি হানিফকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। অন্যদের ধরতে চেষ্টা চলছে।

পাহাড়ের আলো

https://pahareralo.com

সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল। সর্বশেষ সংবাদ সবার আগে জানতে চোখ রাখুন পাহাড়ের আলোতে।

Related post